পদ্মাসেতু এলাকা থেকে শরিয়তপুরের জাজিরা প্রান্তে পদ্মাসেতুর ২৩তম স্প্যান ৩১ ও ৩২ নম্বর পিলারের উপর বসানোর কাজ শুরু হয়েছে। স্প্যানটি বসানো গেলে দৃশ্যমান হবে সেতুর ৩ হাজার ৪৫০ মিটার। ২২তম স্প্যান বসানোর ১০ দিনের মাথায় বসতে যাচ্ছে ২৩তম স্প্যানটি। করোনাভাইরাসের প্রভাবে পদ্মাসেতুর কাজে ধীর গতির শঙ্কাকাকে পেছনে ফেলে স্প্যান বসানোর কার্যক্রম চলছে।

রোববার (২ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টার দিকে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে স্প্যানটিকে নিয়ে যায় ‘তিয়ান ই’ ভাসমান ক্রেন। সকাল ১০টা ১২ মিনিটের দিকে স্প্যানটি সেতুর ৩১ ও ৩১ নম্বর পিলারের কাছে অবস্থান করতে দেখা গেছে। স্প্যানটি সকাল ৮টায় মাওয়া থেকে নিয়ে যাওয়ার কথা থাকলেও আবহাওয়াজনিত কারণে বেশি সময় লেগেছে রওয়ানা করতে।

প্রকৌশল সূত্রে জানা গেছে, স্প্যান বসানোর জন্য আগে থেকেই আনুষঙ্গিক কাজসমূহ সফলভাবে সম্পন্ন করা হবে। বর্তমানে স্প্যানটিকে পজিশনিং করে নির্ধারিত পিলারের কাছে নোঙর করার চেষ্টা চলছে। ইঞ্চি ইঞ্চি মেপে এরপর তোলা হবে পিলারের উচ্চতায়, রাখা হবে দুই পিলারের বেয়ারিংয়ের উপর।

পদ্মাসেতুর ৪২টি পিলারের মধ্যে কাজ শেষ হয়েছে ৩৭টি পিলারের। ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে এ সেতুর কাঠামো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here