শামীম আহমেদ ॥ বরিশালে নুসরাত হত্যার ন্যায় বিচার ও দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনের কঠোর প্রয়োগ ব্যবস্থা গ্রহনের দাবীতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করেছে সচেতন নাগরীক কমিটি (সনাক) বরিশাল জেলা কমিটি ও ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল (টিআইবি) ।

আজ মঙ্গলবার (৩০ই এপ্রিল) সকাল ১১ টায় নগরীর সদররোডে অনুষ্ঠিত হয় মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা।

সনাক বরিশাল জেলা কমিটির সভাপতি অধ্যাপিকা (অবঃ) শাহ্-সাজেদার সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন সনাক জেন্ডার বিষয়ক কর্মকর্তা টুনু রানি কর্মকার, মানবেন্দ্র বটব্যাল, আনোয়ার জাহিদ, কাজী এনায়েত হোসেন শিবলু, জেলা মহিলা পরিষদ সম্পাদক পূস্প রানী চক্রবর্তী, মোঃ নাসির উদ্দিন, রাফিরা আক্তার, এ্যাড.শাহিদা আক্তার ও বরিশাল মেট্রোপলিটন প্রেস ক্লাব সভাপতি কাজী আবুল কালম আজাদ প্রমুখ।

এসময় বিভিন্ন বক্তারা এক পরিসংক্ষান তুলে ধরে বলেন গত পাঁচ বছর (২০১৪-২০১৮) সাল পর্যন্ত আমাদের উন্নয়নশীল স্বাধীন দেশে ধর্ষন, গণধর্ষন, ধর্ষনের চেষ্ঠা এবং ধর্ষনজনিত হত্যা ও সহিংসতার শিকার হয়েছে প্রায় চার হাজার নারী ও শিশু কন্য।
মহিলা পরিষদের এক সমীক্ষা প্রতিবেদন অনুযায়ী ২০১৮ সালের প্রথম দশ মাসে ধর্ষনের শিকার হয়েছে ছয় শত ছিচল্লিশ জন নারী।
ধর্ষনের পর হত্যা করা হয়েছে তেপান্নজনকে। আর যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে একশত একচল্লিশজন নারী। একই সময়ে গণধর্ষনের শিকার হয়েছে একশত পয়ষট্রি জন নারী, ধর্ষনের চেষ্টা করা হয়ে একশত পনেরোজন নারীকে এবং শ্লীলতাহানির শিকার হয়েছে পাঁচপঞ্চাশ জন নারী। এছাড়া উত্ত্যক্তের শিকার হয়েছে একশত চল্লিশ জন নারী। উত্ত্যক্তের শিকার হওয়ার কারনে আত্মহত্যা করেছে চৌদ্দজন নারী।

বক্তারা মানববন্ধন প্রতিবাদ সভা থেকে বলেন দেশে তনু সহ বহু হত্যাকান্ডের যথাযথ বিচার না হওয়ার কারনে এবং ঘটনার সঠিক তদন্তের প্রতিবেদন প্রকাশ না করার কারনেই দেশে নারী ও শিশুদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যায় নাই।
তাই নুসরাত সহ সকল অপরাধীদের ভয় ও চাপের উর্ধ্বে থেকে বিচার প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তাদেরকে কঠোর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করার দাবী জানিয়েছে টিআইবি ও সচেতন নাগীরক কমিটি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here