বরিশাল নগরীতে যুবতী‘র সামনে পুরষাঙ্গ প্রদর্শন করে এক লম্পট। গতকাল বিকেল ৬ টার দিকে এই ঘটনাটি ঘটে। সূত্র জানা গেছে এক যুবতী নথুল্লাবাদের উদ্দেশ্যে বরিশাল নগরীর জেল খানার মোড় থেকে অটো গাড়িতে উঠেন। অটোতে বসা এক যুবক যুবতীকে দেখে তার প্যান্টের চেইন খুলে গোপনাঙ্গ মেয়েটিকে দেখাতে থাকে।

মেয়েটি দেখতে পেয়ে অন্য দিকে তাকালেও এর পরেও প্যান্টের চেইন আটকায়নি লম্পট মাসুম বিল্লাহ (২৮)। মেয়েটির যাওয়ার কথা ছিলো নথুল্লাবাদে কিন্তু পথি মধ্যেই নতুন বাজার এলাকায় নেমে যায় যুবতী।

তবে চতুর মেয়েটি ছেলেটির এই দৃশ্যকে মোবাইলে ভিডিও করে।

বিষয়টি তার পরিবারের সদস্যদের জানালে তারা ভিডিওটি ফেইজবুকে আপলোড করে।

এমন ঘটনা নজরে আসে বরিশাল মেট্টোপলিটন পুলিশের কমিশনার মোঃ শাহাবুদ্দিন খানের। তিনি বরিশাল মেট্টোপলিটন পুলিশেরসাইবার ক্রাইম ও মিডিয়া সেলকে। সাইবার ক্রাইম ও মিডিয়া সেল বিভাগের সদস্য মোঃ ওবায়েদুল হক ও মোজাম্মেল টানা কয়েক ঘন্টা অনুসন্ধান করে গত রাত সাড়ে ১০টার দিকে বরিশাল নগরীর কাশিপুর বাজারের মনোয়ারা মঞ্জিল থেকে লম্পট মাসুম বিল্লাহকে আটক করে বিএমপির ক্রাইম ব্র্যাঞ্চ।

জানা গেছে , ঘটনাটি নিয়ে তুলকালাম শুরু হলে ঘটনা ধামাচাপা দিতে উঠে পরে লাগেন কাশিপুর বাজার কমিটির সভাপতি মোঃ কবির হোসেন ও ৩০ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি গোলাম মোস্তফা। পুলিশ গিয়ে লম্পটকে আটক করতে চাইলে সেখানেও বাধা দেয় এরা। পুলিশের ঘন্টা ব্যাপি চেষ্টায় ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি এবং বাজার কমিটির সভাপতি লম্পটকে অন্যত্র সরিয়ে ফেলে।

পুলিশী চাপ প্রয়োগের পর মনোয়ারা মঞ্জিলের ভাড়াটিয়ারা খোজ দেন লম্পটের। বাজার কমিটির সভাপতি প্রকাশ্যে পুরো ঘটনাটাকে গু বলে আখ্যা দেন। তিনি বলেন গু নিয়ে লারা চারা করলে গন্ধ বের হবে। তার চেয়ে সমঝোতায় আসাই শ্রেয়। এমন ঘটনা নিয়ে এলাকা জুড়ে সৃষ্টি হয়েছে চরম উত্তেজনার। এমন সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন এয়ারপোর্ট থানার এসআই আকতার হোসেন।

তিনি এসে লম্পট মাসুম বিল্লাহকে থানায় নিয়ে যায়। সূত্রে জানা গেছে মাসুম বিল্লাহ কাশিপুর বাজারের ওয়ালটন শো-রুমে চাকুরী করেন।

আটককৃত লম্পট মাসুম বিল্লাহ কাশিপুর ইউনিয়নের গনপাড়া এলাকার মোসলেম এর পুত্র বলেও সূত্র জানিয়েছে। এবিষয়ে এয়ারপোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ মাহবুবুল আলম বিডি ক্রাইমকে জানান, মাসুম বিল্লাহকে আটক করা হয়েছে। আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here