কুড়িগ্রামে বাংলা ট্রিবিউনের প্রতিনিধি আরিফুল ইসলাম রিগ্যানের বাড়ির দরজা ভেঙ্গে তুলে নিয়ে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে এব বছরের জেল দেয়ার প্রতিবাদে ও অতি উৎসাহী জেলা প্রশাসকের বিরুদ্ধে বিচার বিভাগীয় তদন্ত সহ দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবীতে মানবন্ধন করেছে বরিশাল রিপোর্টার্স ইউনিটি।

আজ (১৫ মার্চ) রোববার দুপুর ১২টায় অশ্বিনী কুমার হলের সামনের সড়ক সদররোডে এই কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

বরিশাল রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি শুশান্ত ঘোষের সভাপতিত্বে মানববন্ধন কর্মসূচিতে শহীদ আঃ রব সেরনিয়াবাত বরিশাল প্রেসক্লাব সভাপতি ও সিনিয়র সাংবাদিক এ্যাডভোকেট মানবেন্দ্র বটব্যাল বলেন, রাতের বেলায় ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে দন্ড দেয়া এটা পুরোটাই বেআইনী। বর্তমান সরকার প্রশাসন নির্ভর হওয়াতে এমনটা করার সাহস পেয়েছে। তিনি ঘটনায় জড়িত জেলা প্রশাসকের বিরুদ্ধে আইনগত এবং বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়ার দাবী করেন। এসময় আরো বক্তব্য রাখেন শহীদ আঃ রব সেরনিয়াবাত বরিশাল প্রেস ক্লাব সাধারন সম্পাদক এস.এম জাকির হোসেন, কার্যকরী পরিষদ সদস্য কাজী মিরাজ মাহমুদ,বরিশাল জাতীয় দৈনিক ব্যুরোচিফ এসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক আকতার ফারুক শাহিন, বরিশাল টেলিভিশন মিডিয়া এসোসিয়েশনের সভাপতি হুমাউন কবীর,বরিশাল ইলেক্টনিক্স মিডিয়া জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশন সভাপতি ফেরদৌশ সোহাগ, বরিশাল রিপোর্টার্স ইউনিটি সাধারন সম্পাদক মিথুন সাহা, সিনিয়র সাংবাদিক আনিসুর রহমান স্বপন, বরিশাল ইন্ডেপেনডেন্ট টেলিভিশনের বরিশাল ব্যুরো প্রধান মুরাদ আহমেদ,বরিশাল সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক খন্দকার মনিরুল আলম স্বপন,বরিশাল সাংস্কৃতিক সংগঠন সমন্বয় পরিষদ সভাপতি কাজল ঘোষ, নাট্যজন সৈয়দ দুলাল, শিক্ষক নেতা দাশ গুপ্ত আশিষ কুমার,বরিশাল নিউজ এডিটরর্স সাবেক সভাপতি সেয়দ মেহেদী হাসান,বরিশাল সরকারী বিএম কলেজ সাবেক অধ্যাক্ষ স.ম ইমামুল হাকিম, বরিশাল জেলা ওয়াকার্স পার্টি সভাপতি অধ্যাপক নজরুল হক নিলু,বাসদ বরিশাল জেলা সদস্য সচিব ডাঃ মনিষা চক্রবর্তী,উন্নয়ন সংস্থ ও নারী নেত্রী রহিমা সুলতানা কাজল। অনুষ্ঠান সঞ্চলনা করেন ৭১ টেলিভিশন বরিশাল ব্যুরো বিধান সরকার ও বরিশাল রিপোর্টার্স ইউনিটি সাবেক সভাপতি নজরুল বিশ্বাষ।

এখানে সাংবাদিকদের বিভিন্ন সংগঠনসহ রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা একাত্মতা প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here