মিরপুর শের-ই-বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামের প্রতিটি কোনা তার ক্রিকেট কীর্তিতে ভাস্বর। এই হোম অব ক্রিকেটে হেসেছেন। কেঁদেছেন। আনন্দে ভেসেছেন। আবার তার কষ্টের এবং নষ্ট সময়ের কান্নাও দেখেছে বিশ্ব।

এই মাঠে খেলা তো বটেই, অন্য অনেক উপলক্ষ নিয়েও এসেছেন তিনি। তবে ৯ নভেম্বরের আসাটা একটু অন্যরকম। একটু বেশি আবেগের। একে বলে ফিরে আসা। ক্রিকেটে ফেরার আনন্দ-আগমন!

ক্রিকেট জুয়াড়ির কাছ থেকে পাওয়া প্রস্তাবের বিষয়টি গোপন রাখায় আইসিসি সাকিবকে একবছরের জন্য সব ধরনের ক্রিকেটে নিষিদ্ধ করে। খেলা তো বটেই, এই সময়ে আইসিসি’র খেলা হয় এমন কোন ক্রিকেট স্থাপনায়ও সাকিবের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা ছিল। সেই নিষেধাজ্ঞা শেষ হয়েছে এবারের ২৯ অক্টোবর। সাকিব এখন মুক্ত।

নিষেধাজ্ঞা মুক্ত সেই সাকিব ৯ নভেম্বর, সোমবার মাঠে ফিরলেন। শেষবার এই মাঠে এসেছিলেন গেল বছরের ২৯ অক্টোবর। যেদিন নিজের মুখেই আইসিসির নিষেধাজ্ঞার শাস্তির কথা শুনিয়েছিলেন। ২০১৯ এর ২৯ অক্টেবরের পর ২০২০ এর ৯ নভেম্বর। ক্যালেন্ডারের এই হিসেব জানাচ্ছে সবমিলিয়ে ৩৭৬ দিন পরে সাকিব ফিরলেন হোম অব ক্রিকেটে।

চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে এই মাঠেই শুরু হচ্ছে বিসিবির আয়োজনে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ। সেই টুর্নামেন্টে সাকিব খেলবেন। তার আগে ফিটনেস পরীক্ষা দিতেই ৯ নভেম্বর মাঠে আসেন সাকিব। ট্রাকশ্যুট পরা সাকিব মুখে মাস্ক লাগিয়েই মাঠে এলেন। করোনাকালের এই সময়টায় যথাবিধি নিয়ম মেনেই ফটো সাংবাদিকরা দূর থেকেই ছবি তুললেন। ক্রীড়া সাংবাদিকরা গ্যালারির নির্ধারিত স্থানে বসেই দেখলেন সাকিবের মাঠ প্রবেশ!

সোমবার মাঠে সাকিব ফিটনেস ট্রেনারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। তার কাছ থেকে বিভিন্ন নির্দেশাবলি নেন। অসমর্থিত সূত্রে জানা গেছে, মূল ফিটনেস টেস্টের জন্য সাকিবকে আরও কয়েকদিন সময় দেওয়া হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here