আন্তর্জাতিক ডেস্ক॥ টানা ১১ দিন যুদ্ধের পর ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস ও ইসরায়েলের মধ্যে যুদ্ধবিরতি কার্যকর হয়েছে। শুক্রবার (২১ মে) স্থানীয় সময় রাত ২টায় এই যুদ্ধবিরতি কার্যকর হয়। এরপরই ঘর-বাড়ি ছেড়ে রাস্তায় নেমে বিজয়োল্লাস শুরু করেন ফিলিস্তিনিরা। তারা এই যুদ্ধবিরতিকে ফিলিস্তিনের মানুষের বিজয় বলে উল্লেখ করেন।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা জানিয়েছে, স্থানীয় সময় শুক্রবার ভোর রাতের কিছু আগে যুদ্ধবিরতি কার্যকরের পর দলে দলে রাস্তায় নেমে আসেন ফিলিস্তিনিরা। যুদ্ধবিরতিকে নিজেদের বিজয় হিসেবে উল্লেখ করে এসময় উল্লাসে মেতে ওঠেন তারা। এসময় ফাঁকা গুলিবর্ষণ এবং আতশবাজির শব্দের মাধ্যমে বিজয় উদযাপন করেন ফিলিস্তিনিরা।

 

বিজয় উদযাপনের সময় হামাসের পতাকা হাতে রাস্তায় ফিলিস্তিনিরা
আলজাজিরার সংবাদদাতা সাফওয়াত আল-কাহলৌত জানিয়েছেন, ইসরায়েলের নিঃশর্তভাবে যুদ্ধবিরতিতে রাজি হওয়াকে ফিলিস্তিনের বিভিন্ন দল নিজেদের বিজয় হিসেবে বর্ণনা করেছেন এবং বিজয় উদযাপনের অংশ হিসেবে বিভিন্ন মসজিদের লাউডস্পিকারের মাধ্যমে আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করছেন তারা।

তিনি বলেন, যুদ্ধবিরতি কার্যকরের পরপরই বিজয় উদযাপনে হাজার হাজার ফিলিস্তিনি রাস্তায় নেমে আসেন।

 

এদিকে বার্তাসংস্থা এএফপি জানিয়েছে, ইসরায়েলের নিঃশর্তভাবে যুদ্ধবিরতিতে রাজি হওয়াকে আনুষ্ঠানিকভাবে নিজেদের বিজয় বলে দাবি করেছে ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস। শুক্রবার ভোরে গাজা শহরে উল্লাসরত মানুষের উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে ইসরায়েলের বিরুদ্ধে জয়লাভের ঘোষণা দেন হামাসের রাজনৈতিক ব্যুরোর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সিনিয়র নেতা খলিল আল-হায়্যা।

 

উদযাপনরত মানুষের উদ্দেশে তিনি বলেন, এটা বিজয়ের আনন্দ, বিজয়ের উচ্ছ্বাস। এছাড়া ইসরায়েলের বিমান হামলায় ধ্বংস ও ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ি ও বিভিন্ন ভবন পুনর্নির্মানের ঘোষণাও দেন হামাস নেতা খলিল আল-হায়্যা।

সূত্র: আলজাজিরা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here