অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’ ভারতের ওড়িশায় আঘাত হেনেছে। বুধবার (২৬ মে) বাংলাদেশের উপকূল অতিক্রম করেছে। পটুয়াখালী জেলার নদ-নদীর পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছিল ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে।

এছাড়াও জোয়ারের পানিতে ভাঙা বেড়িবাঁধ দিয়ে পানি প্রবেশ করে প্লাবিত হয়েছে কলাপাড়া, রাঙ্গাবালী ও গলাচিপা উপজেলার প্রায় ৫৬ টি গ্রাম।

জেলা প্রশাসনের দেয়া প্রাথমিক তথ্যমতে, উপকূলীয় এলাকায় মঙ্গলবার সকাল থেকে বুধবার বিকেল পর্যন্ত কয়েক দফা তলিয়ে গেছে অসংখ্য মাছের ঘের ও পুকুর। রাঙ্গাবালী উপজেলার ১৬ টি ইউনিয়নের সব নিম্নাঞ্চল ও চরাঞ্চলসহ ১৮ টি গ্রাম পানিতে প্লাবিত হয়েছে।

কলাপাড়ার বেড়িবাঁধ বিধ্বস্ত হয়ে স্বাভাবিকের চেয়ে ৩ থেকে ৪ ফুট উঁচু জোয়ারের পানি প্রবেশ করে প্রায় ২৬ টি গ্রাম পুরোপুরি প্লাবিত হয়ে পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন প্রায় তিন হাজার মানুষ।

পটুয়াখালী সদর উপজেলার জৌনকাঠী গ্রামে বেড়িবাঁধ ভেঙে পানি প্রবেশ করে পানিবন্দি হয়ে পড়েছে প্রায় এক হাজার মানুষ। গলাচিপা উপজেলার প্রায় ১২ টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে।

পটুয়াখালী পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. হালিম সালেহীন বলেন, জোয়ারের পানিতে কি ধরনের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা নিরূপণ করার কাজ চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here